মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৮ জানুয়ারি ২০২১

ইতিহাস ও কার্যাবলী

প্রাণিসম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের গবাদী পশু ও হাঁস মুরগীর জন্য একটি টিকা উৎপাদনকারী ও গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান। এর প্রধান কাজ দেশে উৎপাদিত সকল গবাদি পশু পাখির রোগ নিরাময়ে ব্যবহৃত টিকা উৎপাদন, এর গুনগতমান পরীক্ষা নিরীক্ষা ও  মাষ্টার সীড সংরক্ষন, নতুন ও কার্যকরী সীড উন্নয়নে বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাথে সমন্বয় করে গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা করা এবং চাহিদা অনুযায়ী দেশের বিভাগ, জেলা, উপজেলা পর্যায়ে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের বিভিন্ন অফিসগুলিতে উৎপাদিত টিকা সরবরাহ করা। ১৯৫৬ সালে রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্র মহাখালী তে ৮.১৯ একর জমির নিয়ে এই প্রতিষ্ঠান টি প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে ১৪ টি টিকা উৎপাদনকারী শাখা(রানীক্ষেত টিকা শাখা, ডাকপ্লেগ টিকা  শাখা , তড়কা টিকা  শাখা, বাদলা টিকা  শাখা, গলাফুলা টিকা  শাখা, ক্ষুরা রোগ টিকা শাখা,পি পি আর টিকা  শাখা, জলাতংক টিকা  শাখা, ফাউল পক্স টিকা  শাখা, গামবোরো টিকা  শাখা, সালমোনেলা টিকা  শাখা,ফাউল কলেরা টিকা  শাখা, মারেক্স টিকা  শাখা, গোট পক্স টিকা  শাখা, ও ৩ টি  টিকা উৎপাদনের সহযোগী শাখা (কোয়ালিটি কন্ট্রোল শাখা, এনিমেল রেয়ারিং শাখা, মিডিয়া ও সীড কালচার শাখা ) সহ মোট ১৭ টি শাখা ও ভেটেরিনারি পাবলিক হেলথ এন্ড মোইক্রোবায়োলজি  শাখা নিয়ে এর কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। এছাড়াও প্রাণিসম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান (এলআরআই) কুমিল্লা থেকে ০৫ টি টিকা ( তড়কা, বাদলা, গলাফুলা, ফাউল কলেরা ও ক্ষুরা রোগ) উৎপাদন করা হয়। রোগ অনুসন্ধান গবেষণাগার ১০ টি (এফডিআইএল), রোগ অনুসন্ধান সহযোগী শাখা ০৪ টি, ০১ টি প্রাণিপুষ্টি শাখা, ০১ টি প্রাণি প্রজনন শাখা ও ০৪ টি প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান ভিটিআই (ময়মনসিংহ, চুয়াডাঙ্গা) এলটিআই (সিলেট ও গাইবান্ধা) ভেটেরিনারি কলেজ (সিরাজগঞ্জ ও ঝিনাইদহ) এই প্রতিষ্ঠানের বহি:শাখা হিসাবে অর্ন্তভুক্ত। বর্তমানে ১১৬ জন কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়ে প্রাণিসম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি প্রতি বছর সফলতার সাথে তার লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করে চলছে। ২০১৯-২০ অর্থ বছরে টিকা উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২৮.৫০ (কোটি মাত্রায়) এবং  জুন/২০২০ ইং পর্যন্ত যার অর্জন ছিল ২৭.৭৪ (কোটি মাত্রায়)। যা মোট লক্ষ্যমাত্রার ৯৭.৩৬% অর্জন। অত্র প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত রিন্ডারপেস্ট টিকা দ্বারা বাংলাদেশ হতে রিন্ডারপেস্ট রোগ নির্মূল সম্ভব হয়েছে।যার স্বীকৃতিস্বরূপ এই প্রতিষ্ঠানটি ২০১০ সালে বিশ্ব প্রাণিস্বাস্থ্য সংস্থা (OIE) কর্তৃক বাংলাদেশ হতে রিন্ডারপেস্ট রোগ নির্মূলের সনদ লাভ করে।ভবিষ্যতে টিকা উৎপাদন জোরদার করণ এবং আধুনিকায়নের জন্য কাজ চলছে। উল্লেখিত কর্মযজ্ঞের আলোকে একথা অনস্বীকার্য  যে প্রাণিসম্পদ গবেষণা প্রতিষ্ঠান (এল আর আই) প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের একটি অন্যতম প্রধান প্রতিষ্ঠান যেটি জন্মলগ্ন থেকে বাংলাদেশের প্রাণিসম্পদ উন্নয়ন ও রোগ দমনের মাধ্যমে নিরাপদ দুধ, ডিম ও মাংসের নিশ্চয়তা বিধান করে দেশের চাহিদা পূরণে একটি অনন্য ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।     


Share with :

Facebook Facebook